রায়দিঘি থেকে কলকাতায় আসা,কিভাবে ‘অনুরাগের ছোঁয়া’ ধারাবাহিক এ সুযোগ পেলেন অভিনেত্রী স্বস্তিকা

 

Advertisement

“তুই পারবি,অনেক বড় হবি” এটা বলেই সর্বদা মা-বাবা সাহস যুগিয়ে চলতো তাকে। দক্ষিণ ২৪ পরগণার রায়দিঘির একটি সাংস্কৃতিক পরিবারে জন্ম হয় অভিনেত্রী স্বস্তীকার। পরিবারের সকলেই গানবাজনার সাথে যুক্ত। মা রবীন্দ্রসঙ্গীত চর্চা করেন। অভিনেত্রীও ফোর্থ ইয়ার অব্দি ‘ভারত নাট্যম’ শিখে ফেলেছেন।

Advertisement

তবে এটি তার প্রথম ধারাবাহিক নয়। অভিনয় জগতে নিজের ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন ‘সরস্বতীর প্রেম’ ধারাবাহিকে অভিনয়ের মাধ্যমে। এখন আবার অভিনয় জগতে ফিরেছেন ‘অনুরাগের ছোঁয়া’ ধারাবাহিকে দীপান্বিতা চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে। অভিনয় জগতে তার বছর দুয়েক হয়ে গিয়েছে‌। বাবার সাথে টালিগঞ্জে থাকেন অভিনেত্রী স্বস্তিকা ঘোষ।

Advertisement

অভিনেত্রী জানান,”অনুরাগের ছোঁয়া’য় লিড রোল পাওয়াটা বেশ আকষ্মিক ছিল আমার জন্য। আমার আগে প্রায় ১৫-১৬ জন অডিশন দিয়েছিলেন। ভাগ্যবশত আমি পেয়ে গিয়েছি।” এমনকি তিনি কখনও কোনো শর্ট ঠিকঠাক না দিতে পারলে সহ-অভিনেতা অভিনেত্রীদের সাথে সাথে পরিচালক থেকে শুরু করে সেটের সবাই প্রায় তাকে সবরকম ভাবে সাহায্য করে।

Advertisement

তার সহ অভিনেতা দেবজ্যোতির সাথেও তার বন্ধুত্বের সম্পর্ক বেশ ভালো হয়ে গিয়েছে। শুটিং এর ফাঁকে মাঝে মাঝে আন্তরিক্ষও খেলা চলে তাদের মধ্যে। শর্ট নিয়েও সর্বদা আলোচনা চলে দুজনের। চরিত্রটি সকলের কাছে ঠিকঠাক ভাবে তুলে ধরার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করেন তিনি। নিজের মেকাপ টোন ডাউন করেছেন সামান্য।

Advertisement

বিশ্রাম সেভাবে না পেলেও সামান্য ঘুম ও মেকাপেই চালিয়ে নেন তিনি। মাঝে মাঝে আবার ডান্স প্র্যাকটিস ও করেন তিনি। নাচের সাথে সম্পর্কটা মধুর হলেও পড়াশোনার সাথে তা একদম বিপরীত। লকডাউনে সামান্য টুকটাক কাজ ও শিখে ফেলেছেন তিনি।

Advertisement

অভিনেত্রী নিজের সাফল্যের পেছনে নিজের পরিবারের সদস্যদেরই আসল কৃতীত্ব দিয়েছেন। তার বাবা-মা এবং পরিবারের বাকি সদস্যরা যেভাবে তাকে সাহায্য জুগিয়েছে তার জন্য তিনি তাদের সকলকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। ছোটবেলা থেকেই অভিনেত্রী হতে চাইতেন স্বস্তিকা। তাই তার নিজের অদম্য জেদ এবং ইচ্ছেশক্তিকে কাজে লাগিয়ে তিনি এখানে এসে আজ পৌঁছেছেন।

Advertisement

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button