চাকরি না পেয়ে শুরু করেছিলেন মাশরুম চাষ,এখন বার্ষিক উপার্জন ২৫ লক্ষ টাকা

 

Advertisement

কঠোর পরিশ্রম ও উদ্যম জেদ থাকলে মানুষ যা চায় তাই করতে পারে। নিজের আত্মবিশ্বাসের জেরে মানুষ সমস্ত কিছুই হাসিল করতে পারে সে রকমই একজন ব্যক্তি হলেন বিহারের নওয়াদার বাসিন্দা মনোজ কুমার। তিনি নিজের পড়াশোনা শেষ করে অনেক চেষ্টা করার পরেও একটি চাকরি জোটাতে পারেননি। ফলে পেটের ভাত জোগাতে কঠোর পরিশ্রম করে মাশরুম চাষ করে সফলতা অর্জন করেছেন।

Advertisement

পড়াশোনা শেষ করার পর অনেক চেষ্টা করেন কেবলমাত্র একটি চাকরির। কিন্তু বহু জায়গায় পরীক্ষা ও ইন্টারভিউ দেওয়ার পর কেবলমাত্র হতাশা দেখতে পান মনোজবাবু। ফলে সিদ্ধান্ত নেন মাশরুম চাষ করার। ২০০৭ সাল নাগাদ তিনি মাত্র ৭০০ টাকা দিয়ে শুরু করেন মাশরুম চাষ এবং সেথেকে আয় করেন ২৪০০০ টাকা।

Advertisement

শুরুর দিকে তিনি বহু বাধা-বিপত্তির সম্মুখীন হন। এরপর কৃষিকাজকে আরো উন্নত করার জন্য ২০০৯-১০ সাল নাগাদ ডি এম আর সোলান থেকে উন্নত মানের মাশরুম চাষের পদ্ধতির প্রশিক্ষণ নেন। মাশরুম চাষের পাশাপাশি উন্নত মানের মাশরুম চাষের জন্য ব্যাবহৃত সার তৈরি করেছেন তিনি। এরপর তিনি স্পন শিল্প গড়ে তোলেন।

Advertisement

বর্তমানে মনোজ বাবুর বার্ষিক আয় আনুমানিক ২৫ লক্ষ টাকা। তিনি বর্তমানে বাটন মাশরুম তৈরির জন্য দুটো বড় বড় এসি প্লান্ট তৈরি করেছেন। সেখান থেকে তিনি বেশি পরিমাণে বাটন মাশরুম তৈরি করতে সক্ষম হয়েছেন। তিনি বর্তমানে বিহারের একজন সফল উদ্যোক্তা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন।

Advertisement

এছাড়াও নিজের ব্যবসার পাশাপাশি ৫০০০ মানুষকে প্রশিক্ষণ দিয়েছেন মাশরুম চাষের। তার এই কাজের জন্য দিল্লির প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কপিল সিবাল তাকে সম্মানিত করেছেন। আজ তিনি বহু মানুষের অনুপ্রেরণা হয়ে উঠেছেন।

Advertisement

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button