অষ্টম শ্রেণীতে ফেল করা সেই ছেলেটি মাত্র ২৩ বছর বয়সে কোটিপতি,তার ক্লায়েন্ট লিস্টে রয়েছে মুকেশ আম্বানি

 

Advertisement

প্রতিটি পরিবারের অভিভাবকরাই তাদের নিজেদের সন্তানদের ভবিষ্যত নিয়ে সবসময় চিন্তিত থাকেন। তাই জন্য প্রতিটি অভিভাবকই চান তাদের সন্তান যেন ভালো স্কুলে এবং কলেজে পড়াশোনা করার সুযোগ পায়। সন্তানদের ভালো ফলের আসায় প্রায়ই অভিভাবকরা নিজেদের বাচ্চাদের পড়ার কথা বলে থাকেন এবং সন্তানদের পড়াশোনায় আগ্রহ লক্ষ্য না করা গেলে তাদের দুশ্চিন্তা আরো বেড়ে যায়।

Advertisement

আসলে প্রতিটি অভিভাবকের মনেই একটি বিশ্বাস হয়েছে যে জীবনে কিছু করার জন্য লেখাপড়া অত্যন্ত জরুরী। কিন্তু তাদের এই বিশ্বাস থেকে ভুল প্রমাণ করে দিলেন ২৩ বছর বয়সী একটি যুবক। ছেলেটির নাম ত্রিশানিত। সে মুম্বাইয়ের বাসিন্দা। ত্রিশানিতের ছোটোবেলা থেকেই পড়াশোনায় কোনোরকম মনযোগ ছিল না‌‌।

Advertisement

ফলে সর্বদাই তার পরিবারের লোকজন তার ভবিষ্যত নিয়ে চিন্তা থাকতো। কিন্তু কেবলমাত্র ২৩ বছর বয়সে সে এমন সাফল্য অর্জন করেছেন যা তার পরিবারের লোকেরা কখনো কল্পনাও করতে পারেননি।

Advertisement

ত্রিশানিত বর্তমানে একজন সাইবার সিকিউরিটি এক্সপার্ট। ছোটবেলা থেকেই পড়াশোনায় অমনোযোগী হলেও কম্পিউটার এবং ভিডিও গেমের প্রতি ছিল তাঁর বিশেষ ঝোক। পড়াশোনা না করার জন্য তার বাবা প্রতিদিন ই কম্পিউটারের পাসওয়ার্ড চেঞ্জ করতেন।

Advertisement

কিন্তু সে কোন রকম ভাবে কম্পিউটার পাসওয়ার্ড হ্যাক করে গেম খেলতে বসে যেতেন ফলে এই বিষয়ে তার বাবা মুগ্ধ হয়ে তাকে একটি কম্পিউটার এনে দেন। কিন্তু যখন সে তার অষ্টম শ্রেণীতে ফেল করে তখন স্কুলের প্রধান শিক্ষক তার বাবা-মাকে ডেকে পাঠান। এরপরই তার বাবা-মা ছেলের কম্পিউটারেই ক্যারিয়ার বিষয়ে ভাবনাচিন্তা শুরু করেন।

Advertisement

পরিবারের সমর্থন পাওয়ার পর ত্রিশানি স্কুল ছেড়ে কম্পিউটারের খুটিনাটি বিষয় শিখতে শুরু করেন। কেবলমাত্র ১৯ বছর বয়সে সে কম্পিউটার ফিক্সিং এবং সফটওয়্যার পরিষ্কার করতে শিখে ফেলেন। এরপর সে ছোট ছোট প্রকল্পের কাজ পেতে শুরু করেন। তার প্রথম চেক ছিল ৬০০০০ টাকা।

Advertisement

এরপর থেকে সে নিজের একটি কোম্পানি খোলার সিদ্ধান্ত নেয়। বর্তমানে তিনি টিএসসি সিকিউরিটি সলুশন কোম্পানির মালিক। যা বিভিন্ন সংস্থাকে সাইবার সিকিউরিটি প্রদান করে। তার কোম্পানির গ্রাহকের লিস্টে রয়েছে রিলায়েন্স থেকে শুরু করে এস বি আই পাঞ্জাব পুলিশ এবং অ্যাভন প্রমুখ। বর্তমানে ভারতে তার চারটি অফিস রয়েছে এবং একটি অফিস রয়েছে দুবাইতে।

Advertisement

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button