‘সমস্ত টাকা মানুষের সেবায় খরচ হয়েছে’,আয়কর দপ্তরকে কটাক্ষ সোনু সুদের

 

Advertisement

গতবছর লকডাউন এরপর থেকেই নিজের বিভিন্ন রকম সমাজসেবামূলক কাজের দরুন গরিব মানুষের কাছে মসিহা হয়ে উঠেছিলেন বলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা সনু সুদ। একের পর এক বিভিন্ন জনকল্যাণ মূলক কাজের মাধ্যমে জয় করেছিলেন সকলের মন। চলতি বছরও করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রাক্কালে অক্সিজেন ও বেড জোগাড় করে বহু মানুষের প্রাণ বাঁচিয়েছেন তিনি।

Advertisement

কিন্তু সম্প্রতি কুড়ি কোটি টাকা আয়কর ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে অভিনেতা সনু সুদ এর বিরুদ্ধে। এমনকি অভিনেতার বাড়ি ও অফিসে আয়কর দপ্তর এর আধিকারিকরা তল্লাশি অভিযান চালিয়েছেন। এই তল্লাশি অভিযান চলেছে প্রায় তিন দিন ধরে। কিন্তু এবার সেই বিষয় নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় মুখ খুললেন অভিনেতা সোনু সুদ।

Advertisement

সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায় সোনু লিখেছেন,সমস্ত দেশবাসীর আশীর্বাদ সাথে থাকলে কঠিন পথে হাঁটাও সোজা হয়ে যায়। তিনি জানান,তার সমস্ত টাকা মানব সেবার কাজে খরচ হয়েছে। তিনি মনে করেন,নিজের কথা সবসময় নিজের মুখে বলার প্রয়োজন পড়ে না সেটা সময় বলে দেয়। তার কথায়,তার ফাউন্ডেশন এর সমস্ত টাকা কোনো না কোনো আর্থিক সাহায্যের জন্য খরচ হয়েছে। তিনি অনেক ব্র্যান্ড কেউ অনুরোধ করেছেন তার এনডোর্সমেন্ট ফ্রী যেন সমাজসেবামূলক কাজে খরচ করা হয়।

Advertisement

তার বাড়ি এবং অফিসে আয় করার বিষয় নিয়ে সনু সুদ জানান,গত চার দিন নাগাদ তিনি নিজের অতিথিদের নিয়ে ব্যাস্ত ছিলেন ফলে মানুষের সেবা করতে পারেননি। সমস্ত বাধা বিপত্তি কাটিয়ে তিনি আবারও ফিরে আসতে চান জনসেবামূলক কাজে। মানুষের প্রাণ বাঁচানোর জন্য উৎসর্গ করতে চান নিজেকে। কিন্তু ইতিমধ্যেই অভিনেতার বাড়ি এবং অফিসে আয়কর দপ্তর এর হানা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক জল্পনা এবং অভিনেতার পাশে এসে দাঁড়িয়েছে আম আদমি পার্টি।

Advertisement

প্রসঙ্গত গতবছর লকডাউন এরপর থেকেই গরিব মানুষের নানারকম সাহায্যে ঝাঁপিয়ে পড়তে দেখা গিয়েছিল অভিনেতা সোনু সুদ কে। এছাড়াও লকডাউন এর কারণে পিছিয়ে পড়া ছাত্র-ছাত্রীদেরও বিনামূল্যে পড়াশোনার ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন। পাশাপাশি বহু শিশুর বিনামূল্যে হার্টের অপারেশন করিয়েছেন নিজ খরচে। শুধু তাই নয় আর্থিক দিক দিয়ে দুঃস্থ কৃষকদের ও নানা রকম আর্থিক দিক দিয়ে সাহায্য করেছেন সোনু।

Advertisement

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button