‘ভিক্ষা করবো না’,পেটের দায়ে রাস্তায় কলম বিক্রি বৃদ্ধার,প্রশংসার ঝড় নেট দুনিয়ায়

 

Advertisement

পরনে রয়েছে সাদা কাপড় ও মুখে একগাল হাসি ও হাতে একটি পিচ বোর্ডের বাক্স এবং তাতে রাখা কিছু কলম। সেই পিচ বোর্ডের বাক্সের ঢাকনায় লেখা ‘আমি ভিক্ষা করতে চাইনা। দয়া করে ১০ টাকা দিয়ে নীল পেন কিনুন’ এবং শেষে লেখা,’ধন্যবাদ। আমার আশীর্বাদ রইলো।’

Advertisement

পুণেতে অবস্থিত এমজি রোডে প্রায় প্রতিদিনই দেখা মেলে এই সাদা শাড়ী পরিহিত বৃদ্ধার। তার নাম রতন। পেটের ভাত জোগানোর জন্য প্রায় প্রতিদিনই কলম নিয়ে রাস্তায় সেগুলো বিক্রি করতে নামেন তিনি। সম্প্রতি এই বৃদ্ধার ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক পরিমাণে ভাইরাল হয়েছে।

Advertisement

তিনি প্রতিদিনই সামান্য কিছু টাকা রোজগারের জন্য এক বাক্স নীল কলম নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়ান এবং পথচলতি মানুষদের একগাল হাসি নিয়ে কলম নেওয়ার জন্য কলম এগিয়ে দেন। তবে তিনি কাউকে কলম দেওয়ার জন্য জোর করেন না‌।

Advertisement

বৃদ্ধার কথা অনুযায়ী,ভিক্ষা নয় বরং নিজের উপার্জনে দিন কাটাতে চান তিনি যার জেরে তিনি কলম বিক্রি করার এই পেশা বেছে নিয়েছেন। বৃদ্ধার এই মনোভাব দেখে মুগ্ধ হয়েছেন শিখা রাঠি নামক এক মহিলা উদ্যোগপতি। তার মতে, এই বৃদ্ধার মতো আত্মমর্যাদাবোধসম্পন্ন এমন মানুষেরাই বাস্তব জীবনের নায়ক।

Advertisement

সম্প্রতি শিখা দেবী বৃদ্ধার সাথে সাক্ষাৎ এর একটি ছবি নিজের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেল থেকে সকলের সাথে শেয়ার করেছেন। ছবির ক্যাপশনে তিনি লেখেন,’আজ আমি বাস্তবের এক নায়ক এবং সত্যিকারের চ্যাম্পিয়নের দেখা পেলাম— রতন। আমার বন্ধু ওঁর কলমের বাক্সটি দেখার পরই একটি কলম কিনেছিল। তবে আমার যেটা সবথেকে ভাল লেগেছে তা হচ্ছে,রতন আরও কলম কেনার জন্য জোর করেননি। বরং তাঁর মুখে ছিল এক অদ্ভুত তৃপ্তির হাসি।’

Advertisement

পাশাপাশি তিনি আরও লেখেন, ‘আমার মনে হয়, এমন মানুষেরই গুণগান করা উচিত। আপনারা যদি কখনও এমজি রোডে যান, দয়া করে রতনের সঙ্গে দেখা করে ওঁর থেকে কলম কিনবেন। এতে ওঁর ভালো লাগার সঙ্গে আপনারও ভালো লাগবে, তা আমি নিশ্চিত।’

Advertisement

Advertisement
View this post on Instagram

Advertisement

A post shared by Shikha Rathi (@sr1708)

Advertisement


শিখা দেবীর এই পোস্টটি ব্যাপক সাড়া ফেলেছে নেটিজেনদের মাঝে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক পরিমাণে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে এই পোস্টটি। বৃদ্ধার মানসিকতাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সাইবারবাসী।

Advertisement

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button