পান্তাভাতের উপকারিতা সম্পর্কে জানেন কি? বিশেষজ্ঞদের কি ধারণা ? জেনে নিন

রাতের খাবারের পর অবশিষ্ট অতিরিক্ত ভাতে জল ঢেলে ১৬ ঘন্টার মতো সময়ে সাধারণ উষ্ণতায় রেখে দিলে তৈরি হয়ে যায় অনেকের প্রিয় পান্তা ভাত। প্রক্রিয়াটি যদিও একেবারেই জটিল নয়। দেশের নানা প্রান্তে নানা নামে এই খাবারটির প্রচলন রয়েছে।

Advertisement

কিন্তু জানেন কি ? সহজ প্রক্রিয়ায় তৈরি এই খাবারটির পুষ্টিগুণের দিক থেকে তুলনা মেলা ভার।মানব শরীরে পান্তাভাতের বিশেষ গুণ গুলো হল –
পান্তাভাতে রয়েছে পটাশিয়ামের উপস্থিতি, সোডিয়াম সাধারন ভাতের তুলনায় কম যার দরুন রক্তচাপের নিয়ন্ত্রণ করতে পান্তাভাত অবদান রাখতে সক্ষম। এছাড়াও পান্তাভাতে ল্যাকটিক অ্যাসিডের উপস্থিতি মাতৃ দুগ্ধ উৎপাদনে সহায়তা করে। এবং দেহে PH এর সাধারণ মাত্রা বজায় রাখে।

Advertisement

গাঁজন প্রক্রিয়ার ফলে পান্তায় কার্বোহাইড্রেট ও ফ্যাট পরিমাণের তুলনায় অনেকটাই কম। যা সীমিত ভাবে খেলে ওয়েট লস এর ক্ষেত্রে কার্যকরী হতে পারে। এছাড়াও ক্যালসিয়াম , ম্যাগনেসিয়াম , আয়রন এর উপস্থিতি রয়েছে সাধারন ভাতের তুলনায় অনেক বেশি।

Advertisement

যারা বিশেষত ত্বকের যত্ন নিতে ভালোবাসেন তাদের জন্য পান্তা ভাত এক প্রিয় খাদ্য হিসেবেও জায়গা নিতে পারে কারণ এটি ত্বক মসৃণ ও উজ্জ্বল করতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে থাকে। পান্তাভাত কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে, তবে সীমিত ভাবে খাওয়া অতন্ত জরুরি।

Advertisement

এছাড়াও বিশেষ উপকারী ব্যাকটেরিয়ার উপস্থিতি ভিটামিন বি টুয়েলভ এর উপস্থিতি ক্রান্তি, অনিদ্রা দূরীকরণে , কোষ্ঠকাঠিন্য দূরীকরণে হজম শক্তি বৃদ্ধিতে পান্তা ভাতএর উপকারিতা রয়েছে। তবে এদিকে খেয়াল রাখতে হবে যে কোনো কিছুরই অতিরিক্ত ব্যবহার শরীরের পক্ষে বিপরীত প্রভাব সৃষ্টি করতে পারে সুতরাং সীমিতভাবে নিয়ন্ত্রণ রেখে অবশ্যই খাবারটি খেতে হবে।

Advertisement

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button