পুজোয় বৃষ্টির জেরে ভাসতে পারে বাংলা, চাপে পড়বেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা!

 

Advertisement

দুর্গা পুজো মানেই আনন্দ, প্যান্ডেলে গিয়ে প্রতিমা দর্শন, বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা, মজা, হইহুল্লোড়, খাওয়া দাওয়া আর নতুন পোশাক। কিন্তু, এবারের পুজো খুব একটা আনন্দমুখর হবে না বলে মনে করা হচ্ছে। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর যা খবর দিচ্ছে তাতে করে পুজোর দিনগুলো কাকভেজা হতেই হবে।

Advertisement

বিশেষ করে যারা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, যারা পুজোর দিনগুলোতে ফুটপাতে বিভিন্ন খাবারের স্টল নিয়ে বসেন তাদের জন্য এই দিনগুলো খুব একটা সুখকর নাও হতে পারে। কারণ, আগামী ১০ অক্টোবরের মধ্যে ফের বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপ তৈরি হতে পারে। এই নিম্নচাপটি তৈরি হওয়ার পর তা ধীরে ধীরে উত্তর পশ্চিম দিকে এগিয়ে দক্ষিণ ওড়িশা ও অন্ধ্র প্রদেশের উত্তর ভাগে পৌঁছবে আগামী ৪ থেকে ৫ দিনের মধ্যে। ফলে বৃষ্টি অনিবার্য।

Advertisement

এখনও পর্যন্ত ওড়িশার একাধিক জেলায় হলুদ সতর্কতা জারি করেছে। সুন্দরগঢ়, বারগঢ়, সম্বলপুর, দেওঘর, ময়ুভঞ্জ, কেওনঝড় ও বালাসোরে ইত্যাদি জায়গায় ভারী বৃষ্টির সতর্কতা রয়েছে। উপকূলবর্তী এলাকা গুলিতেই ভারী সতর্কতা জারি রয়েছে। যারা মৎসজীবী তাদের উদ্দেশ্যেও সতর্কবার্তা জারি রয়েছে আবহাওয়া অফিসের তরফ থেকে।

Advertisement

 

Advertisement

এদিকে কলকাতার আকাশ মহালয়া থেকেই কালো। শরৎ এর আকাশের সাদা নীল স্পর্শ খুবই কম দেখা যাচ্ছে। পুঞ্জীভূত মেঘ চারিদিকে ছড়িয়ে আছে। সূত্রের খবর, অষ্টমী ও নবমী বৃষ্টি হতে পারে কলকাতা ও উত্তর এবং দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার। এছাড়াও উত্তর বঙ্গে বৃষ্টির সম্ভবনা রয়েছে। উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই বিভিন্ন প্যান্ডেলে প্রতিমা দর্শন শুরু হয়ে গিয়েছে। রাস্তাঘাটে ভিড় বৃদ্ধি পেয়েছে। পুজোতে ঠাকুর দেখার প্ল্যান থাকলে অবশ্যই ছাতা, রেইনকোট, মাস্ক ক্যারি করা আবশ্যক।

Advertisement
Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button