নেই দুটো হাত,শুধুমাত্র পায়ের সাহায্যে অসাধারণ নেচে সকলকে তাক লাগালো ৭ বছরের খুদে, ভাইরাল ভিডিও

বর্তমানে টিভিতে সম্প্রচারিত হওয়া বিভিন্ন রিয়েলিটি শো এর মাধ্যমে দেশ-বিদেশের নানা প্রতিভার সাথে আলাপ হয় আমাদের সকলের। তেমনি ভারতের একটি জনপ্রিয় ডান্স রিয়েলিটি শো হলো “ডান্স ইন্ডিয়া ডান্স লিটিল মাস্টার”। যা কিছু দিন আগেই টেলিভিশনে সম্প্রচারিত হওয়া শুরু হয়েছে এবং এই রিয়ালিটি শো তে বিচারকের আসনে দেখা যায় বলিউডের জনপ্রিয় কোরিওগ্রাফার রেমো ডিসুজা,সোনালী বিন্দ্রে ও অভিনেত্রী তথা আইটেম ডান্সার মৌনি রায়কে।

Advertisement

তবে বর্তমানে এই জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো-এর অডিশন পর্ব চলছে। সেই অডিশন দিতে ছুটে এসেছেন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছোট ছোট খুদে ডান্সাররা। কিছুদিন আগে এমনই একটি অডিশন চলাকালীন এক শিশুর অসাধারণ নাচের কৌশল দেখে বাকরুদ্ধ হয়েছেন বিচারকদের পাশাপাশি সমস্ত দর্শক। এমনকি সেই ভিডিও বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ জনপ্রিয় এবং ভাইরাল।

Advertisement

আসলে সেই শিশুটির একটিও হাত নেই। সে নিজের সমস্ত কাজ করে নিজের দুটো পা এর সাহায্যে এবং এই পায়ের সাহায্যেই অসাধারণ নেচে সকলকে মুগ্ধ করেছে সে। শিশুটির নাম আহমেদ রাজা। তার বাড়ি নাগৌর জেলার অন্তর্গত মাকরানায়। জন্মানোর পর থেকেই তার দুটো হাত নেই এবং পায়েও রয়েছে সামান্য অক্ষমতা।

Advertisement

কিন্তু এই অবস্থাতেও রয়েছে তার অদম্য মনের জোর এবং যার জেরেই ভবিষ্যতে একজন সফল নিত্য শিল্পী হতে চায় সে। তার জন্মের পর থেকে একমাত্র তাঁর বাবাই ছিল তার সঙ্গী। অনেকেই ফারহানের বাবা কে বলেছিলেন ফারহানকে যাতে অনাথ আশ্রম এ দিয়ে দেয়। কিন্তু তিনি কারো কথা শোনেনি। তিনি চেয়েছিলেন ফারহানকে সমস্ত ক্ষমতা দিয়ে শক্তিশালী করে তুলতে। তাই দুটো হাত না থাকা সত্ত্বেও ফারহানকে নাচ শেখানোর দায়িত্ব নেন তিনি।

Advertisement

Advertisement
View this post on Instagram

Advertisement

A post shared by mon (@imouniroy)

Advertisement

Advertisement

ছেলেকে নাচ শেখানোর জন্য ফারহানের বাবা কুচম্যানের ডি গ্ৰুপ অফ ডান্স ইন্সটিটিউশন এ নিয়মিত প্যাক্টিস করাতে নিয়ে যান তিনি। তাদের বাড়ি থেকে এই ইন্সটিটিউশন প্রায় ২৭ কিলোমিটার দূরে। তা সত্ত্বেও তিনি তার ছেলেকে নিয়ে নিয়মিত সেখানে যান। সেখানে আশিষ রাওয়াল ও নির্মল চৌহান নামক দুই নৃত্য গুরু তাকে নিয়মিত নাচ শেখান।

Advertisement

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button