ভাইরাল

সমুদ্রের ধারে তিমির বমি পেয়ে কোটিপতি মহিলা

 

Advertisement

 

Advertisement

 

Advertisement

সিরিপর্ন নিয়ামরিন নামে ওই মহিলকা থাইল্যান্ডের নাখন সি থাম্মারাট প্রদেশের বাসিন্দা।গত ২৩ শে ফেব্রুয়ারি নিজের বাড়ির সামনে বিচের ধারে জিনিসটি পান। পরিস্কার করার পর দেখা যায় ওই অ্যামবারগ্রিসটি ১২ইঞ্চি পুরু এবং ২৪ ইঞ্চি লম্বা ।

Advertisement

৪৯ বছর বয়সী থাইল্যান্ডের এক মহিলা। সমুদ্রের ধারেই বাড়ি। তাই সময় কাটাতে সৈকতে হাঁটতে বেড়িয়েছিলেন। দেখেন জলের তোড়ে পাড়ে অদ্ভুদ এক জিনিস ভেসে এসেছে। মাছের মতো আঁশটে গন্ধ বেরোচ্ছে তাঁর থেকে।

Advertisement

বুদ্ধি করে সেটি বাড়ি নিয়ে আসেন মহিলা। তারপর প্রতিবেশীদের দেখানোর পর জানতে পারেন সেটি বহু মূল্যবান ‘তিমির বমি’ যাকে বলা হয় অ্যামবারগ্রিস(Ambergris) । জানা যাচ্ছে যে অ্যামবারগ্রিসটি ওই মহিলা পেয়েছে তাঁর বাজার মূল্য ভারতীয় মূল্যে প্রায় ২ কোটি টাকা।

Advertisement

সিরিপন আপাতত এই অ্যামবারগ্রিসটি বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কিন্তু এই টাকা দিয়ে তিনি কী করবেন? এক সাক্ষাতকারে এই ব্যাপারের সিরিপর্ন জানান, ওই টাকা দিয়ে নিজের কমিউনিটির মানুষদের সাহায্যার্থে এগিয়ে আসবেন তিনি।

Advertisement

আসলে এই ‘তিমির বমি’ বা অ্যামবারগ্রিস বিশ্বের বৃহত্তম স্তন্যপায়ী প্রাণীর দেহেরই অংশ। একে ‘ভাসমান সোনা’ বাঁ ‘ সমুদ্রের গুপ্তধন’ বলা হয়ে থাকে। মূলত ‘স্পার্ম হোয়েল’ এর শরীরেই এই জিনিসটি তৈরি হয়।

Advertisement

সেখান থেকে বমির মাধ্যমে সমুদ্রে মিশে যায়।প্রথমে এর থেকে মাছের মতো আঁশটে গন্ধ বেরোলেও পরবর্তীতে খুব সুন্দর গন্ধ বেরোয়।এর ফলে এটি থেকেই সুগন্ধী তৈরি হয়।

Advertisement
Advertisement

Advertisement

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button