রাজনীতি

“বাংলার বাইরে যে কোনো রাজ্য দখল করার জন্য লড়বে তৃণমূল”-মন্তব্য অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের

 

Advertisement

একুশের নির্বাচনে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একাই কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতৃত্বের তাবড় তাবড় নেতাদের রুখে দিয়েছেন বাংলার মাটিতে‌। ভোট পূর্বের আশঙ্কা অনুযায়ী সেরকম ফল করতে পারেনি গেরুয়া শিবির। ২ রা মে ফল ঘোষণার দিন দেখা যায় ২১৩ টি আসন পেয়ে ফেল বাংলার মসনদে বসেছে তৃণমূল এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃতীয়বার নবান্নের সিংহাসনে বসেছেন। এরপরই গোটা দেশের বিরোধীদলীয় নেতারা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যথেষ্ট প্রশংসা করেছেন।

Advertisement

এরই মাঝে কদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় আগামী দিনে কেন্দ্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখার জন্য জোরদার আওয়াজ তুলেছেন নেটিজেনরা। গত সপ্তাহের শনিবার তৃণমূল ভবনে এক বিরাট বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল। সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের তৃণমূলের বিভিন্ন প্রতিনিধিরা। সেই বৈঠকে দলের বেশকিছু রদবদল হয়েছে যার মধ্যে অন্যতম হলো যুব তৃণমূলের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দেওয়া।

Advertisement

অভিষেকের এই পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর এই পদে বসানো হয় প্রত্যয়ী সায়নী ঘোষ কে। এরপর এই পদ থেকে অসীন হয়ে গতকাল সাংবাদিক বৈঠক করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতনই একমুখী বাংলায় নিজেদের প্রচারের জন্য রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় জেলায় ছুটে বেড়িয়েছেন অভিষেক। প্রচার করেছেন এবং সাথে  বিভিন্ন রোড শো তেও দেখা গিয়েছে অভিষেককে।

Advertisement

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,’আমি এই সবে দুদিন হল দায়িত্ব কাঁধে নিয়েছি। আমরা খুব শীঘ্রই পরিকল্পনা করব যে কোন কোন রাজ্যে আমাদের ইউনিট খোলা হবে এবং কিভাবে কার্যকলাপ বৃদ্ধি করা হবে।

Advertisement

আমি অমিত মালব্যজীকে বলছি যে আপনারা একটা আইন তৈরি করে দিন যাতে একটি পরিবার থেকে শুধুমাত্র একজনই রাজনীতির সাথে যুক্ত হতে পারবেন। এই আইন বলবৎ হলে আমি সবার আগে পদত্যাগ করবো। যাদের ছেলেরা বিধায়ক, এমপি হয়ে বসে রয়েছে তাদের আগে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হোক।

Advertisement

তৃণমূলেই একমাত্র এক ব্যক্তি একপদের অবতারণা করা হয়েছে। আমরা বাংলার বাইরে যে কোন রাজ্য দখল করার জন্য আপ্রাণ লড়াই চালিয়ে যাবো।‌ বিরোধীদের উদ্দেশ্যে বলছি,আপনারা কু্ৎসা রটানো বাদ দিয়ে গঠনমূলক আলোচনা করুন।’

Advertisement
Advertisement

Advertisement

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button