ঈশ্বর

দেবাদিদেব কে সন্তুষ্ট রাখতে যেগুলি কখনোই করবেন না

 

Advertisement

সকল ভক্তদের মনোস্কামনা পূরণ করেন মহাদেব। ফুল বেলপাতা দিয়ে পুজো করলেই শিব ঠাকুর সন্তুষ্ট হন, কিন্তু মহাদেব বা শিবকে রাগিয়ে দিলেই মহা বিপদ। প্রাচীন হিন্দু দেবতাদের মধ্যে সবথেকে শক্তিশালী দেবতা মহাদেব, যিনি স্বর্গ-মর্ত্য-পাতালকে এক করেছিলেন। শিবকে আমরা অনেক নামে জেনে থাকি। মহা শক্তিধর দেবতা। তাই শিব ঠাকুরকে প্রসন্ন করতে হলে পুজোর দিন যে সমস্ত কাজগুলো করবেন না –

Advertisement

১.দুধজাতীয় খাবার থেকে দূরে থাকতে হবে-সোমবার বা শিব পুজোর দিনে দুধ জাতীয় কোনও জিনিস মুখে তুলবেন না। কারণ দুধজাতীয় খাবার খেলে অনেক সময় আমাদের শরীরে নানা রকম সমস্যা দেখা দেয়। যার ফলে শরীরে অনেক ক্ষতি হতে পারে। কিন্তু দুধ শিবকে নিবেদন করতে পারেন।

Advertisement

২.বেগুন জাতীয় ভাজা খাবেন না- শিব ঠাকুরের পুজোর দিন বেগুন ভাজা খাওয়া উচিত নয়। তবে ঠিক কি কারণে খাওয়া যায় না সেই বিষয়ে কোনও তথ্য না পেলেও প্রাচীন রীতি অনুযায়ী পুজোর দিন বেগুন ভাজা খাওয়া ঠিক নয়। এতে তিনি অসন্তুষ্ট হতে পারেন।

Advertisement

৩.তুলসী পাতা নিবেদন করবেন না-শিব ঠাকুর ফুল-বেলপাতাতেই সন্তুষ্ট হন। কিন্তু তুলসী পাতা কখনই শিব পুজোয় দেওয়া উচিত নয়। পৌরাণিক কাহিনী অনুযায়ী,জলন্ধর রাক্ষসকে মারাতে তাঁর স্ত্রী তুলসির সতীত্ব ক্ষুন্ন করার প্রয়োজন ছিল। তাই তো ভগবান বিষ্ণু, শিব ঠাকুরের নির্দেশে এই ঘৃণ্য কাজটি করেছিলেন এবং এর পর জলন্ধরকে শিব মেরে ফেরেছিলেন। তখনই তুলসী শিবকে অভিশাপ দিয়ে ছিলেন যে তাঁকে কখনই তুলসী নিবেদন করা যাবে না।

Advertisement

৪.ডাবের জল- শিবকে নিবেদন করা ডাবের জল পান করা উচিত। কিন্তু যদি নারকেলও হয় তাতেও সমস্যা নেই।

Advertisement

৫.শাক-সবজি খাবেন না-পুজোর দিন সবুজ শাক-সবজি খাওয়া উচিত নয়। কারণ, এমন ধরনের খাবার খেলে আমাদের পিত্ত দোষে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আর এমনটা হলে শরীরের ভিতর এমন কিছু পরিবর্তন হতে শুরু করে যে তার প্রভাবে মনকে স্থির রাখা একেবারেই সম্ভব হয়ে ওঠে না। তাই শাক সবজির বদলে সাদা ভাত বা সিদ্ধ ভাত খাবেন

Advertisement

৬.সিঁদুর লাগাবেন না- সিঁদুর মহিলারা সিঁথিতে পড়েন। স্বামীর মঙ্গল কামনায় স্ত্রীরা সিন্দুর পড়ে থাকেন। তাই এ জিনিস কখনই শিব ঠাকুরকে নিবেদন করা উচিত নয়। মধ্যা কথা মহিলারা যে যে জিনিস নিজের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য ব্যবহার করে থাকেন, তা ভুলেও শিব ঠাকুরের ধারে কাছে আনা চলবে না।

Advertisement

শিব ঠাকুরের মূর্তি বাড়িতে থাকলে-

Advertisement

১.ধ্যানরত মূর্তি রাখবেন- ধ্যান আমাদের জীবনে একটা পজিটিভ প্রভাব ফেলে। ফলে বাস্তু মতে শিব ঠাকুরের ধ্যানরত মূর্তি বাড়ির উত্তর-পূ্রব দিক করে রাখলে আমাদের মনে একটা পজিটিভ শক্তি কাজ করতে শুরু করে। ফলে কোনও ধরনের মনোমালিন্য হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়। প্রসঙ্গত, ভুলেও বাড়িতে নটরাজের মূর্তি রাখবেন না যেন!

Advertisement

২.মূর্তিতে বা পটে হলুদ লাগাবেন না- হলুদ মেয়েরা ব্যবহার করে রূপচর্চার কাজে। তাই শিবকে কখনই হলুদ লাগানো উচিত নয়। কিন্তু চন্দন লাগানো যেতেই পারে। ফলে সর্বশক্তিমানের আশীর্বাদ থেকে বঞ্চিত হওয়ার আশঙ্কা যায় কমে।

Advertisement

৩.পূজোর মন্ত্র- সকালে স্নান সেরে পবিত্র কাপড়ে “ওম নমঃ শিবায়”, এই মন্ত্রটি জপ করতে হবে। আর সোমবার খেয়াল করে দুধ দিয়ে স্নান করাতে হবে দেবাদিদেবকে। ভগবান শিবের পুজো শুরুর আগে মনে করে গণেশ ঠাকুরের পুজো করতে ভুলবেন না।

Advertisement
Advertisement

Advertisement

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button